বিদেশ ফেরত শ্রমিক ও গ্রামীণ উদ্যোক্তদের ঋণ দিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক

  বিশেষ প্রতিনিধি    18-03-2023    149
বিদেশ ফেরত শ্রমিক ও গ্রামীণ উদ্যোক্তদের ঋণ দিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক

কোভিট-১৯ এর কারণে ২০২০ সালের শুরু থেকে বিদেশ ফেরত বাংলাদেশি শ্রমিক, বেকার বা কর্মহীন যুবক (১৮-৪৫ বছর বয়সী) যারা সরকার অনুমোদিত প্রতিষ্ঠান থেকে প্রশিক্ষণ পেয়েছেন অথবা গ্রামীণ উদ্যোক্তদের সর্বোচ্চ সাড়ে ৫ শতাংশ সুদে ঋণ সহায়তা প্রদান করবে বাংলাদেশ ব্যাংক। যেখানে কমপক্ষে ২০ শতাংশ নারী মালিকানাধীন উদ্যোগ/প্রতিষ্ঠান হতে হবে।

পর্যটন শহর কক্সবাজারের পাঁচ তারকা মানের একটি আবাসিক হোটেলের কনফারেন্স হলে বাংলাদেশ ব্যাংক আয়োজিত “সাপোর্টিং পোস্ট কোভিট-১৯ স্মল-স্কেল এমপ্লয়মেন্ট ক্রিয়েশন প্রজেক্ট (এসপিসিএসএসইসিপি)” এর রিজিওনাল অ্যাওয়ারনেস প্রোগ্রামে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

শনিবার (১৮ মার্চ) দুপুরে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট ইউনিট (পিএমইউ) প্রকল্প পরিচালক মোঃ খুরশীদ আলম।

তিনি বলেন, আমরা চাই দেশের সকল স্তরের মানুষ অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হোক। মাথা উঁচু করে দাঁড়াক। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর কাছে বাংলাদেশ ব্যাংকের সেবাকে পৌঁছে দিতে আমরা কাজ করছি।

ব্যাংকসহ অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানগুলো সহযোগী প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা রাখছে। কম সময়ে আমাদের সফলতা অনেক।

মোঃ খুরশীদ আলম বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য যা যা করা দরকার তাই করতে নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর। আমরা সেভাবে এগুচ্ছি। তলাবিহীন ঝুড়ি ছিল এই দেশ। এখন আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। ৫৭০ কোটি টাকার বাজেট এখন পাঁচ লক্ষ কোটি টাকার উপরে। জিডিপির গ্রোথ নিয়ে কথা বলবেন। শুধু বিরোধীতা কিংবা সমালোচনা করলে হবে না। বাস্তবতা দেখতে হবে।

হ্যাঁ, আমাদের অনেক চ্যালেঞ্জ আছে। সমন্বিতভাবে আমরা সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করবো। দেশকে আরো সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাব।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন এসপিসিএসএসইসিপি পরিচালক মোঃ সালাহ উদ্দীন।

অনুষ্ঠানে সিএমএসএমইএস ফাইন্যান্সিং ও এসপিসিএসএসইসিপির উদ্দেশ্য সম্পর্কে কী-নোট উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের অতিরিক্ত পরিচালক ও সাপোর্টিং পোস্ট কোভিট-১৯ স্মল-স্কেল এমপ্লয়মেন্ট ক্রিয়েশন প্রজেক্টের উপ-প্রকল্প পরিচালক রোজিনা আক্তার মোস্তাফী।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, কর্মসংস্থান ব্যাংকের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মোঃ মশিউর রহমান, কক্সবাজার চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি আবু মোর্শেদ চৌধুরী, কক্সবাজার উইমেন চেম্বারের সভাপতি জাহানারা ইসলাম, বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প সমিতি (নাসিব) এর ভাইস প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদ মুনির-উজ-জামান, সিএমএসই ব্যাংকিং স্পেশালিস্ট ও জিএফএ কনসালটিং গ্রুপের টিম লিডার আলী সাবেত।

সাপোর্টিং পোস্ট কোভিট-১৯ স্মল-স্কেল এমপ্লয়মেন্ট ক্রিয়েশন প্রজেক্ট (এসপিসিএসএসইসিপি) সম্পর্কে তথ্য উপস্থাপন করেন টিএ প্রজেক্টের ন্যাশনাল মনিটরিং এন্ড ইভালুয়েশন স্পেশালিস্ট সুপ্রিয় কুমার ভট্টাচার্য্য।

এ সময় বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক ও পিএমইউ প্রকল্প পরিচালক অসীম কুমার চন্দসহ শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শুরুতে কুরআন তেলাওয়াত করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি ডাইরেক্টর মোঃ আকরাম হোসেন।

অনুষ্ঠানের শেষ প্রান্তে উন্মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বিভিন্ন ব্যাংক, অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান ও উদ্যোক্তারা। অনেকে তুলে ধরেন ব্যাংক ঋণ নিয়ে সফল, স্বাবলম্বী হওয়ার ইতিকথা।

তবে, বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা থাকার পরও প্রান্তিক লবণচাষিদেরকে ঋণ না দেওয়ার অভিযোগ তোলেন বিসিকের ডিজিএম মোঃ জাফর ইকবাল।

তিনি বলেন, নির্দেশনা থাকার পরেও কক্সবাজারের কোন ব্যাংক লবণচাষিদের এক টাকাও ঋণ দেয় নি। অথচ আমরা নিজস্ব তহবিল থেকে মাত্র ৫ শতাংশ লাভে ঋণ দিচ্ছি। যার ফলাফল যথেষ্ট ইতিবাচক।

বিসিক কর্মকর্তার অভিযোগ গুরুত্ব সহকারে শোনেন এবং আমলে নেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মোঃ খুরশীদ আলম।

এই বিষয়ে তিনি সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে একটি সুরাহা করবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

সারাদেশ-এর আরও খবর